আর্কাইভ | ডিসেম্বর, 2012

সুপ্র’র উদ্যোগে ২২ জেলার সাংবাদিকদের ৩দিন ব্যাপী কর্মশালা সমাপ্ত

29 ডিসে.
সুশাসনের জন্য প্রচারাভিযান (সুপ্র)’র উদ্যোগে বাজেট ও অর্থনৈতিক সাক্ষরতার উপর ২২ জেলার ৫০জন সাংবাদিকের ৩দিন ব্যাপী কর্মশালা গত ২ জানুয়ারী ১৩ শেষ হয়েছে। গতকাল ৩০ ডিসেম্বর ২০১২, রবিবার থেকে সকাল ১০টায় সাভারের বারুইপাড়া সিসিডিবি হোপ সেন্টারে সুপ্র’র আয়োজনে কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন সুপ্র’র পরিচালক সামিয়া আহমেদ। কর্মশালায় সঞ্চালকের দায়িত্ব পালন করেন কাজী শফিকুর রহমান ও মোঃ শরিফুল ইসলাম। কর্মশালায় বাংলাদেশের বাজেট প্রক্রিয়া, বাজেট সম্পর্কিত শব্দাবলী, এক নজরে বাজেট, রাজস্ব ও উন্নয়ন বাজেট সম্পর্কে বিশদ আলোচনা, সুপ্র’র বাজেট অ্যাডভোকেসি সম্পর্কে বিষদ আলোচনা ও দলীয় কাজের মাধ্যমে অংশগ্রহণকারীগণ বাজেট বিষয়ক শব্দাবলী নিয়ে আলোচনায় অংশগ্রহণ করে তাদের মতামত ব্যক্ত করেন। কর্মশালায় ঢাকা, রংপুর ও চট্টগ্রাম বিভাগের ২২টি জেলা থেকে ৬জন নারী সাংবাদিক সহ ৫০জন সাংবাদিক অংশগ্রহণ করেণ।

ব্রা‏হ্মণপাড়ায় বৃত্তিপ্রাপ্ত ছাত্র ছাত্রীদের মাঝে সনদ ও পুরস্কার বিতরণ

28 ডিসে.

  ব্রা‏হ্মণপাড়া উপজেলার নাইঘর ইউনিটি কিন্ডারগার্টেনে গত ২৮ ডিসেম্বর বৃত্তি প্রাপ্ত ছাত্র ছাত্রীদের মাঝে পুরস্কার ও সনদ বিতরণ অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত অতিথি ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক (ফুল ব্রাইট স্কলার) এম. আই এস ডিপার্টমেন্টের অধ্যাপক মো: আনিসুর রহমান জুয়েল।
উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ব্রা‏হ্মণপাড়া সদর ইউপি চেয়ারম্যান হাজী জসিম উদ্দিন, বিশেষ অতিথি ছিলেন ব্রা‏হ্মণপাড়া সদর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান হাজী আলী আকবর, উপজেলা ছাত্রলীগের

সাবেক সাধারণ সম্পাদক মমিনুল ইসলাম মমিন, অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উক্ত স্কুলের অধ্যক্ষ মো: শাহাবুদ্দিন বিশ্বাস, পরিচালনা করেন স্কুল সভাপতি ফোরকান আহমেদ সবুজ, উপসি’ত ছিলেন স্কুল পরিচালনা পর্ষদের সদস্য তাজুল ইসলাম, নাজমুল হাসান, আতাউর রহমান, নাছির উদ্দিন, আবুল কালাম, উজ্জল চন্দ্র শীল, কামরুল হাসান, আনোয়ার হোসেন, রাসেল, রোমান, শাহজাহান, সাদেকুর রহমান, ডা: আলীম, দুলাল, মহালক্ষীপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো: হোসেন, জিয়া উদ্দিন, নবির হোসেন, ডা: ইউনুস, বিশিষ্ট সমাজ সেবক আ: কাদের সহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও শিক্ষক শিক্ষার্থী এবং অভিভাবকগণ। অনুষ্ঠানে এলাকার রত্ন হিসেবে সংবর্ধিত অতিথিকে বিশাল সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। এসময় তিনি উক্ত বিদ্যালয়ে ১টি কম্পিউটার প্রদান করেন এবং তার দাদার নামে ১টি কল্যাণ ট্রাষ্ট উদ্বোধনের ঘোষনা দেন। এসময় ওই বিদ্যালয়ের ১১জন কৃতি শিক্ষার্থীকে নগত অর্থ ও সনদ পত্র বিতরণ করা হয়।

ব্রাহ্মণপাড়ায় প্রাথমিক শিক্ষা সমাপণী পরীক্ষায় পাশের হার ৯৯.৩৭% ইবতেদায়ীতে ৮৪.৭৭%, জেএসসি পাশের হার ৯০.৬৪% জেডিসি ৯২.৩৭%

27 ডিসে.
ব্রা‏হ্মণপাড়া প্রতিনিধি ॥
দেশব্যাপী গত ২৭ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার প্রকাশিক প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী সমাপনি পরীক্ষার ফলাফলে কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়ায় প্রাথমিক সমাপনীতে ৯৯.৩৭% ও ইবতেদায়ীতে ৮৪.৭৭% অর্জিত ফলাফলে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন এলাকার এমপি, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা নির্বাহী কর্তকর্তা সহ শিক্ষা সংশ্লিষ্টরা।
গত ২৭ ডিসেম্বর  সকালে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হাজী জাহাঙ্গীর খাঁন চৌধুরী ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আজিজুর রহমানের নিকট ফলাফল হস্তান্তর করেন উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম সরকার। এসময় উপসি’ত ছিলেন উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান তাহমিনা হক পপি, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা উত্তম কুমার বড়-য়া,

বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যানবৃন্দ, প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি রুহুল আমিনসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষকবৃন্দ। উপজেলা শিক্ষা অফিস সুত্রে জানা যায়, প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় মোট ১৬৭টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৫০৯৯ জন। এরমধ্যে ৪৯১৯জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাশ করেছে ৪৮৮৮জন। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২৩৯জন, এ-পেয়েছে ১৪৮৮জন, এ(-)মাইনাছ পেয়েছে ১২১৪জন, বি-পেয়েছে ১০৬১ জন, সি-পেয়েছে ৮০০জন, ডি-পেয়েছে ৮৬জন। অনুপসি’ত ছিল ১৮০জন, অকৃতকার্য হয়েছে ৩১জন। পাশের হার ৯৯.৩৭%। অপরদিকে উপজেলার ২৩টি মাদ্রাসার অংশগ্রহনে ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় ৮৪৭জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে উপসি’ত ছিল ৭২৭জন। মোট পাশ ৭১৮জন। অনুপসি’ত ১২০জন এবং অকৃতকার্য হয়েছে ৯জন। পাশের হার ৮৪.৭৭%।
প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম সরকার এ প্রতিনিধিকে বলেন, পূর্বের চেয়ে এবারের ফলাফল অনেক ভাল। শিক্ষা সংশ্লিষ্টরা তাদের চেষ্টা অব্যাহত রাখলে আগামীতে এ ফলাফল ১০০% হবে বলে আমি আশা করি।
অপর দিকে  দেশব্যাপী প্রকাশিত জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট পরীক্ষায় কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার ফলাফল গতকাল ২৭ ডিসেম্বর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হাজী জাহাঙ্গীর খাঁন চৌধুরী ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আজিজুর রহমানের নিকট হস্তান্তর করেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মুহম্মদ শহীদুল করিম। এসময় উপসি’ত ছিলেন উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান তাহমিনা হক পপি, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো: কবির হোসেন, মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা সারোয়ার খান সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষকবৃন্দ। জেএসসি পরীক্ষায় মোট ২৯টি স্কুলের অংশগ্রহনে পরীক্ষার্থী ছিল ৩১০০জন। এরমধ্যে পাশ করেছে ২৮১০জন। জিপিএ ৫ পেয়েছে ২১ জন। অকৃতকার্য ২৯০জন। পাশের হার ৯০.৬৪%।
জেডিসি পরীক্ষায় মোট ২১টি মাদ্রাসার অংশগ্রহনে পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে ১০৪৯জন। পাশ করেছে ৯৬৯জন। জিপিএ ৫ পেয়েছে ১২ জন। অকৃতকার্য হয়েছে ৮০ জন। পাশের হার ৯২.৩৭%। এর মধ্যে শতভাগ পাশ করেছে ভগবান সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়, জিরুইন বহুমুখী উচ্চবিদ্যালয়, প্রফেসর সেকান্দর আলী উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়, এম.এ. চন্ডিপুর রেজাউল হক উচ্চ বিদ্যালয়, দীর্ঘভূমি বঙ্গবন্ধু উচ্চ বিদ্যালয়, পূর্ব চন্ডিপুর বঙ্গবন্ধু নিম্ন মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়। শতভাগ পাশ করায় এসব প্রতিষ্ঠানকে এলাকার এমপি সাবেক আইন মন্ত্রী এড. আবদুল মতিন খসরু, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হাজী জাহাঙ্গীর খান চৌধুরী, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আজিজুর রহমান, থানার অফিসার ইনচার্জ উত্তম কুমার বড়-য়া, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মুহম্মদ শহীদুল করিম, উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম সরকার সহ শিক্ষা সংশ্লিষ্টরা ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে এই ধারা অব্যাহত রাখার আহবান জানান।

ব্রা‏হ্মণপাড়ার শশীদলে ফ্রি চক্ষু চিকিৎসা ও স্বাস’্য সেবা

25 ডিসে.

কুমিল্লার ব্রা‏হ্মণপাড়া উপজেলার শশীদল আশাবাড়ী মমতাজ নাহার ফাউন্ডেশন ভ’ইয়া বাড়ীর উদ্দ্যোগে ২৫ ডিসেম্বর ঈদ পূনর্মিলনীকে কেন্দ্র করে ফ্রি চক্ষু চিকিৎসা, মেডিকেল ক্যাম্প ও বিনামূল্যে ওষুধ বিতরণ করা হয়।
  উক্ত চিকিৎসা ক্যাম্পে বাংলাদেশ জাতীয় অন্ধ কল্যাণ সমিতির কুমিল্লার পক্ষ থেকে ৫ সদস্যের ১টি মেডিকেল টিম সারা দিন ব্যাপী ফ্রি চক্ষু সেবা, বিশেষজ্ঞ ডাক্তার দ্বারা সাধারণ রোগীদের চিকিৎসা সেবা ও ওষুধ বিতরণ করা হয়। এসময় প্রায় ৩শ রোগীকে সেবা প্রদান করে বিনা মূল্যে ওষুধ বিতরণ করা হয়। এতে সার্বিক সহযোগীতা ও সমন্বয়ক হেলথ এন্ড ডক্টরস হসপিটালের ব্যবস’াপনা পরিচালক শফিউজ্জামান সিপনের

পরিচালনায় এই অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। ফ্রি চিকিৎসা সেবা প্রদান করেন ঢাকা সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজের অর্থপেডিক্স সার্জন অধ্যাপক ডা: এম.এস. জামান শাহীন, বার্ডেম মেডিকেল কলেজের অধ্যাপক ডা: সুলতানা পারভীন, ইষ্টার্ন মেডিকেল কলেজ কুমিল্লার সহকারী অধ্যাপক ডা: মোসলেহ উদ্দিন, শিশু বিশেষজ্ঞ ডা: আফসানা মুক্তি, ডা: মাহবুব সাজ্জাদ। অনুষ্ঠানে উপসি’ত ছিলেন বিশিষ্ট ক্রীড়া সংগঠক বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সাবেক কার্য্যকরী সদস্য বদরুল হুদা জেনু, ইঞ্জিনিয়ার শাহরিয়ার জামান সাকন, ব্যবস’াপনা পরিচালক হাইবারটেক ডেভলাপার ফার্ম, মো: দেলোয়ার হোসেন, মো: জামশেদ, তমিজুল হক ভ’ইয়া, আবদুর রশিদ ভ’ইয়া, নজরুল  ইসলাম ভ’ইয়া, দেলোয়ার হোসেন ভ’ইয়া প্রমুখ।

ব্রা‏হ্মণপাড়ায় ৪২তম জাতীয় স্কুল ও মাদরাসা শীতকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগীতার পুরস্কার বিতরণী

24 ডিসে.

ব্রা‏হ্মণপাড়া প্রতিনিধি ॥
কুমিল্লার ব্রা‏হ্মণপাড়া উপজেলার সরকারী উচ্চবিদ্যালয় মাঠে গত ২৪ ডিসেম্বর সোমবার ৪২তম জাতীয় স্কুল ও মাদরাসা শীতকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগীতা ২০১২এর পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হাজী জাহাঙ্গীর খান চৌধুরী।
উপজেলার মাধ্যমিক পর্যায়ের স্কুল মাদরাসার শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহনে আয়োজিত উক্ত প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ভগবান সরকারী উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা তাহেরা বেগম,

জাতীয় স্কুল ও মাদরাসা ক্রীড়া সমিতি ব্রা‏হ্মণপাড়া শাখার উদ্দ্যোগে আয়োজিত খেলা পরিচালনা করেন উপজেলা সম্পাদক ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোহাম্মদ শহীদুল করিম, সহ সম্পাদক এ.কে.এম. আসাদ উল্লাহ সহ সমিতির সদস্যবৃন্দ। উপসি’ত ছিলেন উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ক্রীড়া শিক্ষক, প্রধান শিক্ষক সহ প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহনকারী শিক্ষার্থী এবং ক্রীড়ামোদি এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। এসময় ক্রীড়া প্রতিযোগীতার আয়োজক সমিতির সকল সদ্যগণকে সম্মানী পুরস্কার সহ বিভিন্ন প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহণকরীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। এসময় অতিথিরা বক্তব্যে বলেন ক্রীড়া এখন শুধু প্রতিযোগীতাই নয় স্কুলের পাঠ্য বিষয় হিসেবে অন্তর্ভুক্ত। শাররিক ভাবে সুস’্য থাকতে হলে ক্রীড়ার বিকল্প নেই। লেখাপড়ার পাশাপাশি ক্রীড়া প্রতিযোগীতায় সমান ভাবে অংশগ্রহনের মাধ্যমে সুস’্য দেহ গঠণ করতে হবে। সাধারণ শিক্ষার পাশাপাশি শাররিক শিক্ষা গ্রহণ করা প্রত্যেকেরই এখন দায়িত্ব ও কর্তব্য বিধায় ক্রীড়ার প্রতি সকলের সক্রিয় অংশগ্রহনের জন্য আহবান জানান।

ব্রা‏হ্মণপাড়ায় যুবলীগের দ্বিবার্ষিক সম্মেলন

21 ডিসে.

ব্রা‏হ্মণপাড়া প্রতিনিধি ॥
কুমিল্লার ব্রা‏হ্মণপাড়া উপজেলার ১নং মাধবপুর ইউনিয়ন আওয়ামী যুবলীগের উদ্দ্যোগে গত ২১ ডিসেম্বর বিকেলে ষাইটশালা আদর্শ উচ্চবিদ্যালয় ও কলেজ মাঠে দ্বিবার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।
অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ছিলের সাবেক আইন মন্ত্রী এডভোকেট আবদুল মতিন খসরু এমপি, বিশেষ অতিথি ছিলেন ব্রা‏হ্মণপাড়া থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি এড. দেওয়ান আবদুল জলিল, সাধারণ সম্পাদক ও ব্রা‏হ্মণপাড়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হাজী জাহাঙ্গীর খান চৌধুরী, মাধবপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের আহবায়ক আলহাজ্ব শফি উদ্দিন আহমেদ সরকার,

মাধবপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান সুলতান আহম্মেদ, অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মাধবপুর ইউনিয়নের যুবলীগের সভাপতি আবুল ফরহাদ ভ’ইয়া, পরিচালনা করেন ইউনিয়ন আওয়ামী যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক নাজিম উদ্দিন স্বপন, প্রধান বক্তা ছিলেন ব্রা‏হ্মণপাড়া থানা যুবলীগের আহবায়ক সুলতান আহম্মেদ, বিশেষ বক্তা হিসেবে ছিলেন থানা যুবলীগের যুগ্ন আহবায়ক প্রভাষক রেজাউল করিম, মো: হাবিব সরকার, ইসরাফিল ভ’ইয়া, আবুল কালাম আজাদ, জহিরুল ইসলাম উপসি’ত ছিলেন মাধবপুর ইউনিয়ন সাবেক চেয়ারম্যান লায়ন ইসহাক সরকার বাদল, এম. এ. ইউছুফ রানা, সামছুল আলম, মামুনুর রশিদ আখন্দ, জামাল হোসেন, যুবলীগ নেতা শাহজাহান, থানা যুবলীগের প্রচার সম্পাদক রফিকুল ইসলাম খোরশেদ, শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক গাজী হান্নান, থানা স্বেচ্ছা সেবক লীগের যুগ্ন আহবায়ক আবু হেনা মোস্তফা শাহীন, থানা ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি আলী আহম্মেদ, আলাউদ্দিন রিপন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মমিনুল ইসলাম, ছাত্রলীগ নেতা ফখরুল ইসলাম সবুজ, আলী হোসেন সহ মাধবপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃকৃন্দ উপসি’ত থেকে দ্বি বাষিক সম্মেলনকে সফল করেন।

16 ডিসে.

শিদলাই আমীর হোসেন জোবেদা কলেজে বিজয় দিবস পালিত

  ব্রাহ্মণপাড়ার শিদলাই আমীর হোসেন জোবেদা ডিগ্রি কলেজে ৪১তম মহান বিজয় দিবস পালন করা হয়। দিবসের শুরুতে জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মাধ্যমে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মো: নজরুল ইসলাম। পরে তার নেতৃত্বে কলেজের শিক্ষার্থীদের নিয়ে একটি র‌্যালী শিদলাই বাজার প্রদক্ষিণ শেষে কলেজ ক্যাম্পাসে এসে শেষ হয়। কলেজ মাঠে ছাত্র/ছাত্রীদের জন্য ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। পরে কলেজ অধ্যক্ষের সভাপতিত্বে বিজয় দিবস আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এসময় বক্তব্য রাখেন গনিত বিষয়ের প্রভাষক সাইফুল ইসলাম, শরীর চর্চা শিক্ষক নাজমুল হুদা, ২য় বর্ষের ছাত্র সিহাবুল ইসলাম। অনুষ্ঠান শেষে বিজয়ীদের মাঠে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

ব্রা‏হ্মণপাড়ায় নানা আনুষ্ঠানিকতার মাধ্যমে বিজয় দিবস ২০১২ পালিত

16 ডিসে.

সারাদেশের ন্যায় ব্রাহ্মণপাড়াতেও ১৬ ডিসেম্বর বিভিন্ন আনন্দময় আয়োজনের মাধ্যদিয়ে যাকজমক ভাবে উদযাপিত হয়েছে মহান বিজয় দিবস ২০১২।
দিবস উদযাপন উপলক্ষ্যে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সকাল সাড়ে ৬টায় ৩১বার বিজয় তোপধ্বনীর মাধ্যমে দিবসের সুচনা করা হয়। এসময় উপজেলা অফিস প্রাঙ্গনে অবসিহত মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি স্তম্ভে উপজেলা প্রশাসন, উপজেলা পরিষদ, ব্রাহ্মণপাড়া থানা, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠন, বিএনপি ও অঙ্গসংগঠন, ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা প্রেস ক্লাব, ভিলেজ ডেভলপমেন্ট সেন্টার, রশিদ মার্কেটের ব্যবসায়ী সংগঠন, স্বপ্নসিড়ি ক্লাব,

শিক্ষক সমিতি সহ বিভিন্ন সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠনের পক্ষ থেকে পুস্পার্ঘ অর্পন করা হয়। সূর্যোদয়ের সাথে সাথে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, অফিস, দোকানপাঠে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। সকাল ১০টায় ভগবান সরকারী উচ্চবিদ্যালয় মাঠে আয়োজিত বিজয় দিবস প্যারেড উদ্বোধন করার পূর্বে স্বপ্নসিড়ি ক্লাবের আয়োজনে স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচী উদ্বোধন করার পর আনুষ্ঠানিক ভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন উপজেলা চেয়ারম্যান হাজী জাহাঙ্গীর খান চৌধুরী। এসময় সাথে ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আজিজুর রহমান ব্রাহ্মণপাড়া এবং থানার অফিসার ইনচার্জ উত্তম কুমার বড়-য়া । পতাকা উত্তোলনের সময় আমন্ত্রীত অতিথি এবং দর্শকগণ দাড়িয়ে সম্মান প্রদর্শন করেন। পতাকা উত্তোলনের পর শান্তির প্রতীক সাদা পায়রা উন্মুক্ত করন, মার্চ পাষ্ট পরিদর্শন ও কুচকাওয়াজের অভিবাদন গ্রহন করেন উপজেলা চেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং থানার অফিসার ইনচার্জ। মার্চ পাষ্টের পর স্বাধীনতা যুদ্ধের বিভিন্ন স্মৃতি বিজড়িত দৃশ্যের স্মৃতিচারণ করে অংশগ্রহণকারী বিভিন্ন  শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের আয়োজনে আকর্ষনীয় ডিসপ্লে প্রদর্শন করা হয়। ডিসপ্লে শেষে ক্রীড়ানুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠান শেষে উপজেলা চেয়ারম্যান সহ আমন্ত্রীত অতিথিরা মার্চ পাষ্ট, ডিসপ্লে এবং ক্রীড়ায় বিজয়ীদের মধ্যে আকর্ষনীয় পুরস্কার বিতরণ করেন। দুপুরে উপজেলা মিলনায়তনে মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের পরিবারবর্গের সম্মানে আলোচনা সভা ও প্রীতিভোজের আয়োজন করা হয়। এসময় যুদ্ধাপরাধী ও মানবতা বিরোধীদের বিচার দ্রুত বাস্তবায়নের দাবী জানিয়ে স্বাধীনতা যুদ্ধ এবং অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির উপর গুরুত্বআরোপ সহ জাতীয় জীবনের সর্বহ্মেত্রে স্বানির্ভরতা অর্জন বিষয়ক আলোচনা করা হয়। অনেক মুক্তিযোদ্ধারা তাদের যুদ্ধকালীন স্মৃতিচারণ করে কান্না বিজড়িত কন্ঠে আবেগ আপ্নুত বক্তৃব্য পেশ করেন। পাশাপাশি লাখো শহীদের জীবনের বিনিময়ে অর্জিত বিজয় শুধু আনুষ্ঠানিকতার মধ্যে সীমাবদ্ধ না রেখে অর্থনৈতিক বিজয় অর্জনের লক্ষ্যে সকলকে সৎ ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করার আহবান জানান। জুম্মার নামাজশেষে উপজেলা মসজিদে জাতির শানি- ও অগ্রগতি কামনা করে বিশেষ মুনাজাত ও প্রার্থনা করা হয়। বিকেল ৪টায় ভগবান সরকারী উচ্চবিদ্যালয় মাঠে উপজেলা পরিষদ বনাম মুক্তিযোদ্ধা সংসদের মধ্যে প্রীতি ফুটবল খেলার আয়োজন করা হয়। সন্ধ্যায় উপজেলা মিলনায়তনে বিশেষ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজনের মধ্যদিয়ে দিবসের কার্যক্রম সমাপ্ত করা হয়। একই ভাবে উপজেলার বিভিন্ন স’ানে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সামাজিক সংগঠনের পক্ষ থেকে বিজয় দিবস পালন করা হয়। এর মধ্যে উপজেলার ধান্যদৌল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে বিজয় দিবস উপলক্ষ্যে এক আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হাজী জাহাঙ্গীর খান চৌধুরী, সহযোগীতায় আমজাদ হোসেন মেম্বার।

ডাকাত আতঙ্কে নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছে ব্রাহ্মণপাড়া দুলালপুর এলাকাবাসী

14 ডিসে.

মিজানুর রহমান সরকার, ব্রাহ্মণপাড়া ॥
কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়ার দুলালপুর গ্রামে গত কিছুদিনে পর পর কয়েকটি ডাকাতির ঘটনায় ডাকাত আতঙ্কে নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছে ওই এলাকাবাসী। জানা যায় বেশ কিছুদিন যাবত ওই এলাকার লোকজনের ঘরের বাহিরের বৈদ্যুতিক নিরাত্তা বাতি গুলো কে বা কাহারা চুরি করে নিয়ে যাচ্ছে। এর পাশাপাশি গত ১ ডিসেম্বর থেকে শুরু করে প্রতি রাতেই বিভিন্ন বাড়ীতে ডাকাতের হামলা হয়। ইতমধ্যে গত ৪ ডিসেম্বর রাতে দুলালপুর ফকির বাড়ীতে স’ানীয় সাংবাদিক আনোয়ারুলের বাড়ীতে হামলা দিয়ে তার উপর ডাকাতের দায়ের কুপে

বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এছাড়া দুলালপুর দক্ষিণ পাড়া খবিরের বাড়ী, ছোবহান মেম্বারের বাড়ী থেকে ছেড়ে আসা নতুন বাড়ী (নাল্লা), গোপালনগর আক্তারের বাড়ী, দুলালপুদক্ষিণ পাড়া ইলিয়াছ সরকারের বাড়ী, দুলালপুর মীরকিল্লা পাড়া সামছু ধনুর বাড়ী, তাদের বাড়ীর পাশের নতুন ছোট বাড়ী সহ প্রতি রাতেই ডাকাতের হামলা হয়। এলাকার লোকজনের ধারণা এলাকার চোর প্রকৃতির লোকজন একত্রিত হয়ে দল বেধে বিভিন্ন বাড়ীতে ভয় ভিতি প্রদর্শন করে সুযোগ বুঝে লোকজনকে মারধর করে ডাকাতি করে। বর্তমানে ওই এলাকায় সন্ধ্যার পর লোকজনের চলাচল সীমিত হয়ে যায়। রাত্র বাড়ার সাথে সাথে মানুষের নিস্তব্ধতায় এলাকায় ভ’তুরে পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে। ফলে ডাকাতির ঘটনায় মেয়েদের নিরাপত্তার জন্য লোকজনের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে। ডাকাতের ভয়ে ওই এলাকার লোকজন থানায় কোন এজাহার দাখিল করতে সাহস পাচ্ছে না। ব্রাহ্মণপাড়া থানায় পুলিশের স্বল্পতায় ওই এলাকার লোকজন, স্কুল কলেজের ছাত্ররা একত্রিত হয়ে সারা রাত জেগে পাহারা দেয়ার ব্যবস’া করলেও কাটছেনা ডাকাত আতঙ্ক। রাত জেগে পাহারা দেয়ার ফলে ছাত্র ছাত্রীদের লেখাপড়ার ক্ষতি হচ্ছে। শুকনু মৌসুমে গত বছর একই ঘটনার বর্তমান মৌসুমে পুনরাবৃত্তি হচ্ছে। গত বৎসর এলাকার এমপি এড. আবদুল মতিন খসরু, ব্রাহ্মণবাড়ীয়ার কসবা উপজেলার এমপি, কুমিল্লা ও ব্রাহ্মণবাড়ীয়ার পুলিশ সুপার সহ উভয় থানার নেতৃবৃন্দ ডাকাতি আতঙ্কের ঘটনায় বিশাল মিটিং করে তাৎক্ষনিক কিছু পদক্ষেপ নেয়ায় বেশ অনেক দিন ডাকাতি বন্ধ ছিল। কিছুদিন যাবৎ এই ঘটনা শুরু হয়েছে। এই ব্যাপারে ব্রাহ্মণপাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ উত্তম কুমার বড়-য়া জানান, এসব ঘটনাগুলো রহস্যজনক। আমরা প্রতিনিয়ত চক্রটিকে ধরার জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। আশাকরি সংক্ষিপ্ত সময়ের মধ্যে এসব বন্ধ হয়ে যাবে। বর্তমানে মোবাইলের যুগ, পাশাপাশি বাড়ীর লোকজনের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ রেখে রাতে চোর ডাকাত দেখা মাত্র শোর চিৎকারের মাধ্যমে লোকজনের উপসি’তি হলে এই পরিসি’তির উন্নতি হবে আশাকরি। এই ব্যাপারে সংশ্লিষ্টদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে যথাযত ব্যবস’া গ্রহনের জন্য জোর দাবী জানিয়েছেন ওই এলাকার জনসাধারণ।

বুড়িচংয়ে বিএনপির ৪ নেতার পক্ষে হরতাল পালিত

13 ডিসে.

জিহাদ, বুড়িচং।।
বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফকরুল ইসলাম আলমগীরের মুক্তি ও নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবীতে  ১৮ দলীয় জোটের ডাকা অর্ধদিবস হরতালে গত ১৩ ডিসেম্বর কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলায় বিএনপির ৪ নেতার সমর্থনে সর্বাত্বক ও শান্তিপূর্ণ ভাবে হরতাল পালিত হয়েছে। হরতাল চলাকালে উপজেলার কোথাও কোন অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। তাছাড়া দূরপাল্লার যাত্রীবাহী বাস ও ট্রাক চলাচল করতে না পারলেও অফিস, ব্যাংক, বীমা ও দোকান পাটের কার্যক্রম ছিল স্বাভাবিক। বুড়িচং ব্রাহ্মণ পাড়া  উপজেলা বিএনপির ৪ নেতা যথাক্রমে সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যাপক মোঃ ইউনুছ, সাবেক সংসদ সদস্য মোঃ মুজিবুর রহমান, কেন্দ্রীয় কৃষক দলের সহ সভাপতি ও কুমিল্লা দক্ষিন জেলা বিএনপির সহ সভাপতি এ এস এম আলাউদ্দিন ভুইয়া এবং ব্রাহ্মণ পাড়া উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ও কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির সহ সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ জসিম উদ্দিনের পক্ষে হরতালের সমর্থনে  

একটি বিক্ষোভ মিছিল উপজেলা সদরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। এসময় বুড়িচং সদর ইউপি চেয়ারম্যান ও বিএনপি নেতা মোঃ জাবেদ কাউছার সবুজ, উপজেলা বিএনপি যুগ্ম সম্পাদক মোঃ আবু ইউসুফ তুহিন, প্রচার সম্পাদক শাহ আলম মেম্বার, আবুল হাশেম মেম্বার, কৃষক দল নেতা মফিজুল ইসলাম, উপজেলা যুব দলের সহ সভাপতি মোসলেহ উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ মনির হোসেন ভুইয়া, মোঃ জাহাঙ্গীর  আলম, ফারুক হোসেন. হেলাল উদ্দিন, আবাদ হোসেন, মোঃ এরশাদ, গিয়াস উদ্দিন, উপজেলা ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক যথাক্রমে, শামীম রেজা, দেলোয়ার হোসেন দোলন, মিজানুর রহমান, বিল্লাল হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল  আলীম, ষোলনল ইউনিয়ন ছাত্রদলের সাবেক সেক্রেটারী রহমত আলী . সদর ইউনিয়ন ছাত্রদলের আহবায়ক আবদুর রাজ্জাক , যুগ্ম আহবায়ক জামাল হোসেন. ষোলনল ইউনিয়ন ছাত্রদলের আহবায়ক মোঃ রিপন হোসেন, যুগ্ম আহবায়ক ইকরাম হোসেন, ছাত্রদল নেতা মোঃ স্বপন, মোঃ মোস্তফা, কামাল হোসেন, মোঃ শাহীন, বাবুল, মোঃ মোবারক, মোঃ কবির হোসেন, মোঃ সুজন, মোঃ শাহীন,  শ্রমিক দল নেতা মোঃ খোকন, বাবুল আলম, মোঃ হোসেন, মোঃ মিজান, মোঃ জাকির, মোস্তফা কামাল ও সবুজ প্রমুখসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা কর্মী ও সমর্থক বৃন্দ  উপসি’ত ছিলেন।