আর্কাইভ | জানুয়ারি, 2013

ব্রা‏হ্মণপাড়ায় ঢিলে ঢালা হরতাল পালন, যুবলীগের হরতার বিরোধী র‌্যালী

31 জানু.
    কুমিল্লার ব্রা‏হ্মণপাড়া উপজেলায় গত ৩১ জানুয়ারী জামায়াতে ইসলামী ও বিএনপির ডাকা হরতাল সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ঢিলে ঢালা হরতাল পালন হয়েছে। উপজেলার কোথাও হরতালের পক্ষে  মিছিল ও পিকেটিং করতে দেখা যায়নি। ব্রা‏হ্মণপাড়া সিএনজি ষ্ট্যান্ড থেকে উপজেলার বিভিন্ন সড়কে সিএনজি, অটোবাইক, রিক্সা চলাচল করতে দেখা গেছে। উপজেলার সকল বাজারে দোকানপাট খোলা ছিল। অফিস, ব্যাংক বীমা, স্কুল কলেজ মাদরাসা যথারীতি খোলা ছিল। পুলিশ কাউকে

গ্রেফতার করতে দেখা যায়নি। অপরদিকে  উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক আলী হোসেনের পরিচালনায় যুবলীগ প্রচার সম্পাদক রফিকুল ইসলাম খোরশেদের সভাপত্তিবে হরতাল বিরোধী একটি র‍্যালী উপজেলার প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে। এসময় বক্তব্য রাখেন থানা ছাত্রলীগ সাবেক সহসভাপতি আলাউদ্দিন রিপন, সাবেক যুগ্ন সম্পাদক শাহাদৎ হোসেন রনি, উপসি’ত ছিলেন সদর ইউনিয়ন যুগ্ন আহবায়ক উজ্জ্বল কুমার রায়,এনামুল হক সুমন, যুবলীগ নেতা জাহাঙ্গীর, দেলোয়ার, আওলাদ, কিবরিয়া থানা ছাত্রলীগ যুগ্ন আহবায়ক রাশেদ, বিল্লাল, লিটন, আরিফ, জুয়েল, সাইফুল, মিশন, ইউনিয়ন ছাত্রলীগ যুবলীগের নেতৃবৃন্দ। এসময় জামাত শিবিরের নৈরাজ্যের প্রতিবাদে ব্রা‏হ্মণপাড়া ছাত্রলীগ যুবলীগের উদ্দ্যোগে জামাতের সকল কর্মকান্ড বন্ধের দাবীতে র‌্যালী করেন।

Advertisements

ব্রা‏হ্মণপাড়ায় এস.এস.সি ও দাখিল পরীক্ষার্থী ২৫শ ১৮জন

31 জানু.
    কুমিল্লার ব্রা‏হ্মণপাড়া উপজেলায় এবছর এস.এস. সি ও দাখিল পরীক্ষায় ২৪টি স্কুল ও ২১টি মাদরাসায় ২৫শ ১৮জন ছাত্র ছাত্রী অংশগ্রহণ করবে। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মুহাম্মদ শহীদুল করিম জানান স্কুলের কেন্দ্র ৫টি ও ভেন্যূ কেন্দ্র ৪টি, মাদরাসা কেন্দ্র ২টিতে এক যোগে পরীক্ষা আরম্ব হবে। এর মধ্যে কেন্দ্র গুলো হচ্ছে ভগবান সরকারী উচ্চবিদ্যালয়, ব্রাপা-১ ভেন্যু কেন্দ্র মোশাররফ হোসেন খান চৌধুরী ডিগ্রী কলেজ,  ভেন্যু কেন্দ্র সাহেবাবাদ লতিফা ইসমাইল উচ্চবিদ্যালয়, কেন্দ্র মাধবপুর উচ্চবিদ্যালয় ব্রাপা-২,

কেন্দ্র শিদলাই আশরাফ মাধ্যমিক বিদ্যালয় ব্রাপা-৩, ভেন্যু কেন্দ্র আমীর হোসেন জোবেদা কলেজ, কেন্দ্র শশীদল ইউনিয়ন উচ্চবিদ্যালয় ব্রাপা-৪, ভেন্যূ শশীদল আলহাজ ফজলুর রহমান রেজি: প্রাথমিক বিদ্যালয়, কেন্দ্র চান্দলা কেবি উচ্চবিদ্যালয় ব্রাপা-৫, ভেন্যু কেন্দ্র চান্দলা প্রাথমিক বিদ্যালয়, মাদরাসার কেন্দ্র মহালক্ষীপাড়া আলীম মাদরাসা ব্রাপা-১ এবং কেন্দ্র চান্দলা ইসলামিয়া আলীম মাদরাসা ব্রাপা-২। এর মধ্যে পরীক্ষার্থী  শিদলাই আশরাফ উচ্চবিদ্যালয় থেকে ১৪৪জন, পোমকারা ছিদ্দিকুর রহমান উঃবিঃ ৩২জন, নাজনীন হাইস্কুল থেকে ৫৪জন, চান্দলা কেবি উঃবিঃ ১৭১, জিরুইন বহুমুখি উঃবিঃ ৫৬, প্রফেঃ সেকান্দর আলী ভূঞা উঃবাঃবিঃ ২০, ভগবান সরকারী উঃবিঃ ৯৫, বড়ধুশিয়া উঃবিঃ ২জন, শশীদল ইউনিয়ন উঃবিঃ ১৪৬, জাহিদুল হোসেন উঃবিঃ ৭০, আঃরাজ্জাক খান চৌদুরী উঃবিঃ ৮১, গোপালনগর বি.এ.বি উঃবিঃ ৯০, কান্দুঘর বি.বি.এস. উঃবিঃ ৪৭, শীদলাই আশরাফ উঃবিঃ ১৪৪, দুলালপুরএস.এম.এন্ড.কে উঃবিঃ ৬৩, মাধবপুর উঃবিঃ ১৩২, সাহেবাবাদ লতিফা ইসমাইল উঃবিঃ ১৪৬, তেতাভূমি উঃবিঃ ৫৫, ষাইটশালা আদর্শ উঃবিঃ ৫৪, চৌব্বাশ জাহানারা উঃবিঃ ৬৯, দীর্ঘভূমি বঙ্গবন্ধু উঃবিঃ ৬৮, বাঘরা উঃবিঃ ৬৪, শেখ মুজিবুর রহমান উঃবিঃ ৫৭, মহালক্ষীপাড়া শরিফ উঃবিঃ ৬১, টাকই উঃবিঃ ৪৬, মকিমপুর আঃমতিন খসরু উঃবিঃ ৩০, বেড়াখলা আঃমতিন খসরু আদর্শ বালিকা বিঃ ৯, বারেশ্বর উঃবিঃ ১৩, মাদরাসার মধ্যে চান্দলা ইসলামিয়া গাউছিয়া আলীম মাদরাসা ৩১, শিদলাই দারুল ইসলাম ফাজেল মাদরাসা ২৪, কান্দুঘর ইসঃ দাখিল মাদরাসা ২৭, পূর্ব পোমকারা জি.ম.হু.কা. দাখিল মাঃ ২১, বাগরা দারুল উলুম ফাজেল মাদরাসা ৫১, মহালক্ষী ইসলামিয়া আলীম মাদরাসা ২৯, অলুয়া ইসঃ আলীম মাঃ ৪৬, বালিনা ইসঃ আলীম মাদরাসা ৩৩, গোপালনগর ইসঃ দাখিল মাদরাসা ২৬, পূর্ব চন্ডিপুর ইসলামিয়া দাখিল মাদরাসা ১০, বড়ধুশিয়া ইসরামিয়া দাখিল মাদরাসা ২৫, সাহেবাবাদ ইসঃ ফাজেল মাদরাসা ২৭, মাদরাসা ই তালিমুল মিল্লাত দাখিল ৫১, শিদলাই খাজিদাতুল কুবরা (রাঃ) মহিলা দাখিল মাদরাসা ২১, ইসলামাবাদ আলীম মাদরাসা ২১, বড়ভাঙ্গাইন্না ফৌজিয়া খসরু দাখিল মাদরাসা ৩১, নাইঘর ইসলামিয়া দাখিল মাদরাসা ৩৫, টাটেরা হাজী মাষ্টার রেহান উদ্দিন আখন্দ মহিরা মাদরাসা ১৮, ফয়েজিয়া রাজ্জাকিয়া ইসলামিয়া দাখিল মাদরাসা ২০, ষাইটশালা দারুস সুন্নাহ দাখিল মাদরাসা ২৪, রামচন্দ্রপুর ইসলামিয়া দাখিল মাদরাসা ৭জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করবেন। এই উপলক্ষ্যে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে স্ব স্ব প্রতিষ্ঠানে মিলাদ ও বিশেষ দোয়ার আয়োজন করা হয়েছে।

অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলনে গোমতী নদীর ৬০ কি.মি. বাঁধ হুমকীর মুখে

30 জানু.
কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার গোমতী নদীর চর এলাকা থেকে এক শ্রেণীর অসাধু মাটি ব্যবসায়ী ট্রাক্টর যোগে মাটি বিভিন্ন স’ানে সরবরাহের ফলে গোমতী নদীর উভয় তীরের ৬০ কিলোমিটার প্রতিরক্ষা বাঁধ হুমকীর মুখে রয়েছে। এছাড়া নদী থেকে অপরিকল্পিতভাবে  পানি উন্নয়ন বোর্ডের এক শ্রেণীর দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা-কর্মচারীদের যোগসাজশে অসাধু মাটি ব্যবসায়ীরা অব্যহতভাবে বালু উত্তোলনের ফলে গোবিন্দপুর বাজারের ব্রীজসহ বেশ কয়েকটি ব্রীজও হুমকীর মুখে রয়েছে। গোবিন্দপুর বাজার এলাকার গোমতী নদীর উপর র্নিমিত ব্রীজের নিচ থেকে বালু উত্তোলন করছে। যে কোনো সময় ব্রীজের  পিলার

ঢেবে গিয়ে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।
 অপর দিকে অব্যহত মাটি কাটার ফলে ময়নামতি ক্যান্ট মেন্টসহ এলাকার ৩০-৪০ টি পয়েন্ট আগামী বর্ষা মৌসুমে ঝুঁকির মুখে রয়েছে।
সরজমিনে এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে কুমিল্লার পালপাড়া থেকে বুড়িচং উপজেলার গোমতী নদীর উভয় তীরের ৬০ কিলোমিটার প্রতিরক্ষা বাঁধের এলাকাজুড়ে এখন চলছে মাটি কাটার মহোৎসব। গোমতী নদীর চর এলাকা থেকে স’ানীয় প্রভাবশালী, অসাধু মাটির ব্যবসায়ীরা প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে প্রতিদিন এলাকার চিহ্নিত বিভিন্ন স’ান দিয়ে ৩-৪ শতাধিক ট্রাক্টর যোগে মাটি বহন করে সরবরাহ করা হচ্ছে। অসাধু মাটি ব্যবসায়ীরা ট্রাক্টর যোগে উপজেলার বিভিন্ন বাসা-বাড়ি, পুকুর ভরাট, ইটের ভাটাসহ নানাস’ানে মাটি সরবরাহ করছে। প্রতিদিন ভোর রাত থেকে ৩ থেকে ৪ শতাধিক ট্রাক্টর যোগে মাটি সরবরাহের ফলে এবং ট্রাক্টর বেপরোয়া গতিতে চলাচলের কারণে ওই সমস- এলাকার করুণ রাস-াঘাটগুলো আরো বেহাল দশায় পরিণত হয়েছে। অপরদিকে এই এলাকার রাস-াঘাটগুলো দিয়ে যানবাহন চলাচলের একেবারে অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। গত বছর বুড়িচং উপজেলার নানুয়ার বাজার, ময়নামতির মিরপুর এলাকার জনসাধারণ ক্ষতিগ্রস- রাস-াঘাটগুলো পুনরায় নির্মাণ ও সংস্কারের দাবিতে কয়েক দফা মানব বন্ধন করেও কোনো সুফল পায়নি। অপরদিকে এলাকার জনসাধারনেরা রাস-াঘাট নিমার্ণের দাবিতে ক্ষতিগ্রস’ সড়কে গাছ ফেলে বেড়িকেট দিয়ে একদিন যানবাহন চলাচল বন্ধ রাখে। এছাড়া ক্ষতিগ্রস’ সড়কগুলো দিয়ে এলাকার হাজার হাজার জনসাধারণ, স্কুল-কলেজগামী ছাত্র/ছাত্রী, অফিস-আদালতগামী কর্মকর্তা কর্মচারী জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে।
এছাড়াও গোমতী নদীর চর থেকে অসাধু মাটি ব্যবসায়ীদের অব্যহত মাটি কাটার ফলে চর এলাকার শীতকালীন ফসলসহ বিভিন্ন ফসল উৎপাদনে মারাত্মক ক্ষতিসাধিত হচ্ছে এবং পরিবেশ বিপর্যয়েরও আশঙ্খা রয়েছে।
এদিকে গোবিন্দপুর গ্রামের সাবেক মেম্বার আবু জাহের অভিযোগ করেন যে হারে গোমতী নদীর চর থেকে মাটি কেটে প্রতিরক্ষা বাঁধের উপর দিয়ে মাটি নিয়ে ট্রাক্টরযোগে এলাকার সড়ক ব্যবহার করে বেপরোয়া গতিতে চলাচল করছে এতে করে এলাকার রাস-াঘাট  ও জনসাধারণের মারাত্মক ক্ষতিসাধিত হচ্ছে। এছাড়া নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক একাধীক ব্যক্তি আক্ষেপ করে বলেন, উপজেলার গোমতী নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধের প্রায় ৩০-৩৫টি পয়েন্ট দিয়ে বর্ষা মৌসুমে বাঁধ ভেঙ্গে যাওয়ার আশংঙ্খা রয়েছে। যার ফলে পুরো এলাকায় এই মাটি কাটার তান্ডবের ফলে ঝুঁকির মুখে রয়েছে। এদিকে এলাকাবাসী আরো অভিযোগ করছেন পানি উন্নয়ন বোর্ডের এক শ্রেণীর দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা-কর্মচারীদের যোগসাজেসে অসাধু মাটি ব্যবসায়ীরা ক্ষমতার প্রভাব খাটিয়ে দেদারছে অব্যাহতভাবে মাটি কেটে প্রতিরক্ষা বাঁধের উপর দিয়ে এলাকার বেহাল সড়কগুলো আরো পরিণতি খারাপ করে নিয়ে যাচ্ছে। যে সমস- এলাকা দিয়ে প্রতিদিন গোমতী নদী থেকে বালু উত্তোলন ও অবৈধভাবে মাটি কাটা হচ্ছে তাহলো পালপাড়া, বাবুর বাজার, শিমাইলখাড়া, বালিখাড়া, রামনাগর, পূর্বহুড়া, নানুয়ার বাজার, মিথিলাপুর, বাহেরচর, শ্রীপুর, গোবিন্দপুর, শ্যামপুর, মালাপাড়া, মনোহরপুর, হাসনাবাদ, কংশনগর বাজার, রামচন্দ্রপুর, পারুয়ারা, এদবারপুর, কাঁঠালিয়া, কিং-বাজেহুড়া, বাজেহুড়া, মিরপুর, আলেখারচরসমূহ।
এদিকে বুড়িচং উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা, সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক ও সোনার বাংলা কলেজের অধ্যক্ষ আবু সালেক মোঃ সেলিম রেজা সৌরভ বলেন যে, অসাধু ব্যক্তিদের ভয়াবহ থাবার ফলে এলাকার রাস-াঘাট, গোমতি নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধের ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হচ্ছে। যার ফলে এলাকার জনসাধারণ জ্বরাজীর্ণ করুণ রাস-াঘাটগুলো দিয়ে মারাত্মক ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে। এ সমস- বিষয়গুলো প্রশাসন ভালোভাবে তদারকি করছে না প্রশাসন তৎপর না বিধায় সংঘবদ্ধচক্রটি মাটি কাটছে। অপরদিকে তিনি আরো বলেন যে, ‘অবাধে মাটি কাটার কারণে পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট হচ্ছে, নদীর পাড়ের ফসলী জমি ক্ষতিগ্রস’ হচ্ছে। সামনে বর্ষা মৌসুমে বড় ধরণের পাহাড়ী ঢল নামলে বাঁধের দুই পাড়ের বাসিন্দাদের ভোগানি-তে পড়তে হবে।
এ ব্যাপারে কুমিল্লা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ নুরুল আমিন মুঠো ফোনে বলেন, আমরা গত সপ্তাহে এলাকায় ম্যাজিষ্ট্রেট নিয়ে অভিযান চালিয়ে কিছু অর্থ জরিমানা এবং ট্রাক্টর আটক করেছি। এছাড়াও এলাকার মাটি ব্যবসায়ী ও ট্রাক্টর চালকদের বিরুদ্ধে থানায় জিডি ও একাধিক মামলা রয়েছে। এছাড়াও আমরা জেলা প্রশাসককে নিয়ে অভিযুক্ত এলাকাগুলো অভিযান চালানো অব্যাহত রেখেছি। আমাদেরকে দেখলে ট্রাক্টরও মাটি ফেলে অভিযুক্ত ব্যক্তিরা পালিয়ে যায়। এ দিকে তিনি আরো বলেন, গোমতী নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধকে রক্ষা করতে হলে এলাকার রাজনীতিবিদদেরকে এক হয়ে এগিয়ে আসতে হবে। সৌরভ মাহমুদ হারুন, বুড়িচং, কুমিল্লা , ০১৭১৯-৫৫২২৬৪

ব্রাহ্মণপাড়ায় ২ বাড়ীর ৪ ঘর পুড়ার হোতা, কূখ্যাত বিল্লাল ডাকাত গ্রেফতার

29 জানু.
    কুমিল্লার ব্রা‏হ্মণপাড়ার সাহেবাবাদ ছাতিয়ানী এলাকায় গত ২৭ জানুয়ারী রাতে ২ বাড়ীর ৪টি ঘরে অগ্নি সংযোগ করে পুড়িয়ে দেয়ার মূল আসামী এবং ডাকাতি সহ নারী নির্যাতকারী হিসেবে কয়েকটি মামলায় অভিযুক্ত বেশ কয়েকবার কারাবন্ধি হওয়া কূখ্যাত বিল্লাল ডাকাতকে ২৯ জানুয়ারী বিকেলে নিজ গ্রাম ছাতিয়ানী থেকে গ্রেফতার করেছে ব্রা‏হ্মণপাড়া থানা পুলিশ ।
    এই ব্যাপারে তদন্তকারী কর্মকর্তা এস.আই লুৎফর রহমান সাংবাদিকদের জানান, গ্রেফতারকৃত বিল্লাল ডাকাতের বিরুদ্ধে ৩০ অক্টোবর ২০১১ তারিখে বুড়িচং থানায় ডাকাতিকালে হাতে নাতে ধরা খাওয়া মামলা রয়েছে। ব্রা‏হ্মণপাড়া থানায় তার বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি নারী নির্যাতন সহ বাড়ী পুড়ার মামলা রয়েছে। সে এলাকাতে কূখ্যাত বিল্লাল ডাকাত

ও নারী নির্যাতনকারী বিল্লাল হিসেবে কূখ্যাতী রয়েছে। তার নাম শুনলে এলাকায় মহিলারা শিহরে উঠে। তার ভয়ে এলাকাতে নিরীহ সহজ সড়ল লোকেরা মূখ খুলতে সাহস পায়না। সে একাধিকবার বিভিন্ন অপরাধে গ্রেফতার হয়ে জেল হাজতে ছিল। তার গ্রেফতারে এলাকাবাসী স্বসি’র নিঃস্বাশ ফেলে। এলাকাবাসী জানায়, অতি সম্প্রতি ২৭ জানুয়ারী রাতে একই গ্রামের মজিবুর রহমানের বশত ঘর সহ ২টি ঘর এবং মুসলেম মিয়ার বশত ঘর সহ ২টি ঘরে আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেয়। এতে উভয় পরিবারের প্রায় ৬ লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে ক্ষতিগ্রস্তরা জানায়। এছাড়াও সে একই গ্রামের মজিবুর রহমানের স্ত্রী খোরশেদা বেগম এবং তার মাকে বিভিন্ন সময় মারধর, নির্যাতন করায় তার বিরুদ্ধে খোরশেদা বাদী হয়ে ২০০৯ সালে ব্রা‏হ্মণপাড়া থানায় নারী নির্যাতন আইনে মামলা করে। ওই মামলাতেও সে গ্রেফতার হয়ে দীর্ঘ কয়েকমাস কারাগারে ছিল। এছাড়াও তার বিরুদ্ধে এলাকায় বহু কূকর্মের অভিযোগ রয়েছে। যা সাধারণ মানুষ তার ভয়ে থানায় অভিযোগ করার সাহস পায়না। বারংবার বিভিন্ন অপরাধে পুলিশের হাতে গ্রেফতার হওয়ার পরও শাস্তি না হয়ে কিছুদিন পর ফিরে এসে আরও কূকর্মের সাথে জড়িত হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন এলাকাবাসী।

ব্রাহ্মণপাড়ায় ২ জামাত নেতা গ্রেফতার

29 জানু.
    বিভিন্ন স্থানে নাশকতা মূলক কর্মকান্ডের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে কুমিল্লা কোতয়ালী থানার মামলার আসামী হিসেবে ২৯ জানুয়ারী রাতে কুমিল্লার ব্রা‏হ্মণপাড়া উপজেলায় ২ জামাত নেতাকে গ্রেফতার করেছে ব্রা‏হ্মণপাড়া ও কুমিল্লা কোতয়ালী থানা পুলিশ। ব্রা‏হ্মণপাড়া থানার এস.আই লুৎফর রহমান ও এস.আই ইকতার মিয়া এবং কুমিল্লা কোতয়ালী থানার পুলিশ সহ অভিযান চালিয়ে উপজেলার মাধবপুর ইউনিয়নের বাড়ানী গ্রামের মৃত আ: হাকিমের ছেলে ডা: মো: কবির হোসেন (৪১) ও শশীদল ইউনিয়নের নাগাইশ গ্রামের আবদুল মালেকের ছেলে মো: ওবায়দুল্লাহ (৪০)কে নিজ নিজ এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়।

বুড়িচংয়ে আন্ত:জেলা ডাকাত দলের ৫ সদস্য গ্রেফতার

28 জানু.
কুমিল্লার বুড়িচং থানা পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে আন্ত:জেলা ডাকাত দলের ৫ ডাকাতকে গ্রেফতার করতে সমর্থ হয়েছে । থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত ২৮ জানুয়ারী রাত ৯ টায় ঢাকা – চট্টগ্রাম মহাসড়কের বুড়িচং উপজেলার নাজিরা বাজার পেট্রোল পাম্পের সাথে মাতৃ ভান্ডার ও  রসমলাইয়ের দোকানে ডাকাতির প্রস’ুতিকালে থানা পুলিশকে খবর দেয় । খবর পেয়ে বুড়িচং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আমিরুল আলম নেতৃত্বে  দেবপুর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই মোজাম্মেল হক

সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে অভিযান চালিয়ে তাদের ব্যবহৃত মাইক্রোবাস, ছুড়ি, এন্টিকাটার,  রড, সূতলীসহ ডাকাতীর সরঞ্জামাদিসহ  দুর্ধর্ষ ৫ ডাকাতকে গ্রেফতার করে । তাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী সংঘ বদ্ধ এই ডাকাত দল দেশের বিভিন্ন এলাকার বিশেষ করে ঢাকা – চট্টগ্রাম মহা সড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে তারা তাদের নিজস্ব মাইক্রোবাস নিয়ে ঘুরাফেরা করে যেখানে সুবিধা পায় সেখানে তারা  রফতানীযোগ্য বিভিন্ন গার্মেন্টস সামগ্রী সহ মূল্যবান জিনিসপত্র অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ডাকাতি করে নিয়ে যায় । আটককৃত ডাকাতরা হলো:  মাদারীপুর জেলার শীবচর থানার বাহাদুরপুর গ্রামের আয়নাল মিয়ার ছেলে মো. লাভলু মিয়া (৩২), একই জেলা, থানা ও গ্রামের মৃত আ. লতিফ ব্যাপারীর ছেলে মো. রুবেল (২৬), কুমিল্লা জেলার চান্দিনা থানার ছায়াকোট গ্রামের মো. চাঁন মিয়ার ছেলে মো. সিরাজ (৪৫), গাজীপুর জেলার জয়দেবপুর থানার কার্থরা গ্রামের মো. মোশারফ হোসেনের ছেলে মো. সেলিম (১৮) ও গাজীপুর জেলার জয়দেবপুর থানার দক্ষিণ শালনা গ্রামের মো. আমজাদ হোসেনের ছেলে মো. মাসুদ রানা (২৭) । এব্যাপারে গতকাল ২৯ জানুয়ারী এসআই মুজিবুর রহমান বাদী হয়ে বুড়িচং থানায় ৪২ নং একটি  মামলা দায়ের পূর্বক ডাকাতদের জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে । পুলিশ ডাকাতদের কাছ থেকে  তাদের অন্যান্য সদস্য ও সহচরদের নাম সংগ্রহের চেষ্টা চালয়ে যাচ্ছে । # আলমগীর হোসেন, বুড়িচং, কুমিল্লা।

আমরা সেই এমপি চাই না যে এমপি সংসদে বসলে টিআইবি জরিপে বলা হবে অনৈতিক কাজে জড়িত ….শওকত মাহমুদ

28 জানু.

মাদক, সন্ত্রাস ও দূর্নীতির বিরুদ্ধে দূর্বার আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। এলাকার উন্নয়ন কারো একার পক্ষে করা সম্ভব নয়। উন্নয়ন করতে হলে চাই স্বচ্ছ ও সৎ রাজনিতীবিদ। আমরা সেই এমপি চাই না, যে এমপি সংসদে বসলে টিআইবি জরিপে বলা হবে অনৈতিক কাজে জড়িত। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে তত্বাবদায়ক সরকারের দাবী আদায় করে এদেশে নিরপেক্ষ ও নির্দলীয় সরকারের অধিনেই নির্বাচন হবে, এবং সে নির্বাচনে ১৮ দলীয় জোট সরকার গঠন করবে ইনসাল্লাহ। গত ২৭ জানুয়ারী বুড়িচং ও ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় গনসংযোগ কালে বুড়িচং-ব্রাহ্মণপাড়া বিএনপির সমন্বয়ক, জাতীয় প্রেসক্লাবের
সাবেক সভাপতি ও বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের মহাসচিব শওকত মাহমুদ এ কথাগুলো বলেন। তিনি বুড়িচং উপজেলার  বাকশিমুল ও রাজাপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রাম এবং ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার শশীদল ও সদর ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে গনসংযোগ করেন। তিনি কারাগারে বন্ধী ব্রাহ্মণপাড়া যুবদলের সভাপতি সাহজাহান সাজুর স্ত্রী ও তার পরিবারের সাথে সাক্ষাত করে তাদের খোজ খবর নেন। এসময় তার সাথে উপসি’ত ছিলেন বুড়িচং বিএনপির সভাপতি মিজানুর রহমান চেয়ারম্যান, সাধারণ সম্পাদক কবির হোসেন, উপদেষ্টা জাহাঙ্গীর আলম, কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের সভাপতি উৎবাদুল বারী আবু, সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন কায়ছার, রাজাপুর ইউপি চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম,  ব্রাহ্মণপাড়া বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক হুমায়ন কবির খাঁন, সরকার জহিরুল হক মিঠুন, সাংগঠনিক দায়িত্বে আমির হোসেন, যুগ্মআহবায়ক আলী আহাম্মদ, এনামুল হক মাসুদ, বুড়িচং বিএনপি নেতা সুলতান আহাম্মদ, আবদুল লতিফ মেম্বার, ফরিদ উদ্দিন মেম্বার, মুমিন মেম্বার, থানা যুবদলের সভাপতি হুমায়ন কবির বাবুল, সেক্রেটারী জামাল হোসেন, ব্রাহ্মণপাড়া যুবদল সেক্রেটারী মনিরুল ইসলাম সরকার, সহসভাপতি কবির হোসেন, মোস্তফা খাঁন, যুগ্ম সম্পাদক আবু ইউসুফ বাবুল,প্রচার সম্পাদক আনোয়ার হোসেন পাভেছ, বুড়িচং যুবদল  যুগ্ম সম্পাদক আবু নাছের, নাজিম উদ্দিন, প্রচার সম্পাদক আবু জাহের সিপু, ব্রাহ্মণপাড়া থানা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি আনিসুর রহমান ভুইয়া রিপন, বুড়িচং স্বেচ্ছাসেবক দলের সেক্রেটারী নজরুল ইসলাম, জেলা সদস্য মোঃ রিপন, ব্রাহ্মণপাড়া  সহসভাপতি মোখলেসুর রহমান,  জামাল হোসেন,  সাংগঠনিক সম্পাদক মতিউর রহমান হেলাল, যুগ্ম সম্পাদক হারুনুর রশীদ,তিতুমির কলেজের ছাত্রদলের সভাপতি মোঃ শাহিন, ব্রাহ্মণপাড়া যুবনেতা মজিবুর রহমান লিটন, মোঃ দুলাল, বুড়িচং কৃষকদল নেতা মফিজ উদ্দিন, ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক জামাল হোসেন, মিয়া মোহাম্মদ সোহাগ পারভেছ,আমির হামজা, নাজিম মাহমুদ নছির, আতিকুর রহমান শিশু, মোঃ পারভেছ, জিএইচ জোবায়ের, মোঃ কাইয়ুম, বিল্লাল হোসেন, আবদুল আলীম, মোঃ সোহাগ, ব্রাহ্মণপাড়া ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক  ফারুক আহাম্মদ, এমদাদুল হক সবুজ,  মাহাবুব চৌধুরী বাবু,তাজুল ইসলাম, শরাফ উদ্দিন,জাহিদ হোসেন,আবুল কালাম আজাদ, ফজল আহাম্মদ,ছাত্রনেতা মোহাম্মদ আলী, জলিল, বাবলু মৈশান, শামিম, উজ্জল, মিঠু, বায়েজিদ, মহসিন, সালাউদ্দিন, শাহজালাল, কায়েস, রায়হান, রহিম, আলআমিন, বাবলু, নীরু, এমরান, লিটন, সাইফুল, হোসেন,  নাদিম, নুরে আলম, বাবুল, শাহিন, সুমন, দেলোয়ার, আশিকসহ বুড়িচং ও ব্রাহ্মণপাড়া ১৮ দলীয় জোটের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।=> ব্রা‏হ্মণপাড়া সংবাদদাতা।
     

ব্রা‏হ্মণপাড়ায় মসজিদ ভিত্তিক শিশু ও গণ শিক্ষা কার্যক্রম শিক্ষকদের রাজস্ব খাতে নেয়ার দাবী

28 জানু.
    কুমিল্লার ব্রা‏হ্মণপাড়া উপজেলার মসজিদ ভিত্তিক শিশু ও গণ শিক্ষা কার্যক্রমের শিক্ষকগণ গত ২৮ জানুয়ারী সোমবার উপজেলা কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত মাসিক সমন্বয় সভায় তাদেরকে রাজস্ব খাতে নেয়ার দাবী জানান।
    বুড়িচং-ব্রা‏হ্মণপাড়া উপজেলা ফিল্ড সুপারভাইজার মুহাম্মদ মাহবুবুর রহমানের পরিচালনায় এসময় প্রধান অতিথি ছিলেন ব্রা‏হ্মণপাড়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হাজী জাহাঙ্গীর খান চৌধুরীর নিকট এই দাবী করে শিক্ষকরা বলেন, ১৯৯৩ সাল থেকে এই প্রকল্প শুরু হয়ে এই পর্যন্ত ৯৭ লক্ষ শিশুকে

শিক্ষার অধিনে আনা হয়েছে। উপজেলায় ১৩টি কুরআন শিক্ষা ও ৩১টি প্রাক প্রাথমিক শিক্ষা কেন্দ্র চালু রয়েছে যেখানে ৯৩০জন শিক্ষার্থী সফল ভাবে শিক্ষা গ্রহণ করে উপজেলার বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে পরবর্তী শিক্ষা গ্রহণ করছে। ২০১২ সালের ফলাফল অনুযায়ী বুড়িচং-ব্রা‏হ্মণপাড়া উপজেলায় ১০০% ফলাফল অর্জন করেছে। এই শিক্ষা ব্যবস’ায় শিক্ষকের বেতন ছাড়া অন্য কোন খরচ হয়না। এত ভাল ফলাফল অর্জন করার পরও শিক্ষকদের বেতন মাসিক ২ হাজার টাকা মাত্র যা যুগের তুলনায় অতি নগন্য। এই বেতনে বর্তমান বাজারে সংসার পরিচালনা করা একেবারেই অসম্ভব। ফলে শিক্ষক কর্মচারীগণ প্রায়শই হতাশায় ভূগেন। ইতি পূর্বে প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের বেতন ভাতা বাড়ানো এবং ভাতা প্রদান করার কথা বলেছিলেন। প্রতিটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ধর্মীয় শিক্ষক নিয়োগেরও কথা বলেছেন যা দীর্ঘদিন পরও বাস্তবায়ন হয়নি। এই পেশায় থাকতে হলে আমাদের বেতন ভাতা বাড়িয়ে রাজস্ব খাতে নেয়া হোক। তারা আরও বলেন, ইতমধ্যে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আজিজুর রহমান আমাদের শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা এবং অর্জিত ফলাফলে সন’ুষ্টি প্রকাশ করে ভূয়সী প্রশংশা করেছেন। প্রধান অতিথি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান উপসি’ত শিক্ষকদের দাবীর প্রেক্ষিতে সমবেদনা প্রকাশ করে যথা সম্ভব চেষ্টা করার আশ্বাস দেন। এসময় তিনি বলেন, আপনারা আপনাদের দায়িত্ব আরও ভাল করে চালিয়ে যান। শিশুদের ধর্মীয় শিক্ষা প্রদান করা শুধু আয়ের পথ নয়, অশেষ নেকী লাভ করারও পথ। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন শিদলাই মাদরাসার শিক্ষক মাও: আ: আলীম। কোরান তেলাওয়াত করেন মাও. মুহাম্মদ মনিরুল ইসলাম, নাত পেশ করেন মো: ফারুক আহমেদ ও আতিকুর রহমান। উপসি’ত ছিলেন উপজেলার সকল শিক্ষকগণ।

ব্রা‏হ্মণপাড়ায় পূর্ব শত্রুতার জের, অগ্নিকান্ডে ৪টি ঘর ভস্মিভূত

28 জানু.
    কুমিল্লার ব্রা‏হ্মণপাড়ার উপজেলার সাহেবাবাদ ইউনিয়নের ছাতিয়ানী গ্রামে গতকাল ২৭ জানুয়ারী রবিবার পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ২টি পরিবারের ৪টি ঘর পুড়ে ৪ লক্ষ্যাধিক টাকার ক্ষয়খতির দাবী করেছে ক্ষতিগ্রস্তরা।
    জানা যায়, ছাতিয়ানী গ্রামের মজিব মিয়ার স্ত্রী খোরশেদা এবং পার্শ্ববর্তী বাড়ীর মুসলেম মিয়ার সাথে ২৪ জানুয়ারী মারা মারি হয়। এতে খোরশেদা আহত হয়ে ব্রা‏হ্মণপাড়া স্বাস’্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছে এবং ব্রা‏হ্মণপাড়া থানায় এজাহার দাখিল করে। এই ভয়ে খোরশেদার প্রতিপক্ষ মুসলেম মিয়া গংরা বাড়ী ছেড়ে অন্যত্র চলে যায়। ফলে খোরশেদা এবং মুসলেম

মিয়ার বাড়ী জনশূন্য হয়ে পড়ে। এই সুযোগে গত ২৬ জানুয়ারী রাতে আনুমানিক ১১টায় খোরশেদা এবং মুসলেম মিয়ার বাড়ীতে ২টি করে ৪টি ঘরে আকস্মিক ভাবে আগুন জ্বলে উঠে। স’ানীয়রা এসময় ঘটনাস’লে এসে আগুন নিয়ন্ত্রনের চেষ্টা করলেও ৪টি ঘর পুড়ে প্রায় ৪ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি সাধন হয় বলে দাবী করে ক্ষতিগ্রস্তরা। এই ব্যাপারে পরস্পরকে দোষারূপ করে ব্রা‏হ্মণপাড়া থানায় এজাহার দাখিল করলে ব্রা‏হ্মণপাড়া থানার এস.আই লুৎফর রহমান ঘটনাস’ল পরিদর্শন করেন। তিনি অগ্নিকান্ডের বিষয়টির সত্যতা স্বীকার করে এ’প্রতিনিধিকে জানান ঘটনার সময় খোরশেদা হাসপাতালে ভর্তি এবং তার স্বামী ওই এলাকার এক মাহফিলে থাকার বিষয়টি প্রমানিত হয়েছে। অপরদিকে খোরশেদার মামলার ভয়ে মুসলেম মিয়া গংরাও বাড়ীথেকে গা ঢাকা দিয়ে অন্যত্র চলে যাওয়ার বিষয়টিও সত্য। এই সুযোগে তৃতীয় কোন পক্ষ পূর্ব শত্রুতার জের ধরে উভয় পরিবারের মধ্যে সংঘর্ষ জোরদার হওয়ার উদ্দেশ্যে এই কাজ করতে পারে বলে আমার ধারণা। এলাকার লোকজনের কাছ থেকে এমন সন্দেহ ভাজন লোকের নামও পেয়েছি। তবে এই ব্যাপারে চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত হতে সময় লাগবে। তদন্ত চালিয়ে যাচ্ছি। দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস’া গ্রহণ করা হবে ।=> আবদুল আলীম খান, ব্রাহ্মণপাড়া।

বুড়িচংয়ে কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা ও শিক্ষক অভিভাবক সমাবেশ

26 জানু.
গত ২৬ জানুয়ারী কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলা পরিষদের উদ্যোগে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় জিপিএ – ৫ প্রাপ্ত কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা, শিক্ষক সমাবেশ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, পূর্ণমতি এমএ উচ্চ বিদ্যালয়ের উদ্যোগে  অভিভাবক সমাবেশ, বারেশ্বর উচ্চ বিদ্যালয়ের উদ্যোগে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় উপলক্ষে মিলাদ মাহফিল এবং চড়ানল আওয়ামীলীগের উদ্যোগে গরীব  শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ অনুষ্ঠান

পৃথক পৃথকভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে । এসব অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সাবেক আইন মন্ত্রী এড: আবদুল মতিন খসরু এমপি। বুড়িচং উপজেলা পরিষদঃ গতকাল ২৬ জানুয়ারী কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলা পরিষদের উদ্যোগে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় জিপিএ – ৫ প্রাপ্ত কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা, শিক্ষক সমাবেশ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সাবেক আইন মন্ত্রী এড: আবদুল মতিন খসরু এমপি। বুড়িচং উপজেলা চেয়ারম্যান মো: সাজ্জাদ হোসেনের সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ খোরশেদ আলম খান, বেসরকারী প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির মহা সম্পাদক মন্সুর আলী, সাবেক পিপি ও উপজেলা আ’লীগের সভাপতি এড: আবুল হাশেম খান,  সহকারী জেলা শিক্ষা অফিসার ফাতেমা মেহের ইয়াসমিন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান এড: রেজাউল করিম ও উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাদেরা পারভিন আক্তার । অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা শিক্ষা অফিসার বীরমুক্তিযোদ্ধা মো: সিরাজুল ইসলাম খন্দকার । বক্তব্য রাখেন সহকারী শিক্ষা অফিসার সুরাইয়া আক্তার, জেলা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সেক্রেটারী মো: কামরুল হাছান, উপজেলা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সেক্রেটারী আলী আকবর, প্রধান শিক্ষক নুরুল হক, উপজেলা শিক্ষা কমিটির সদস্য মো: মোস-ফা মাষ্টার, অভিভাবক সদস্য নাজনীন সুলতানা, শিক্ষার্থী মিরাজ হোসেন শাওন । কোরআন তেলায়াত করেন আ: কাদের । পূর্ণমতি এমএ উচ্চ বিদ্যালয়ঃ  গতকাল পূর্ণমতি এমএ উচ্চ বিদ্যালয়ের উদ্যোগে অভিভাবক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য  রাখেন সাবেক আইন মন্ত্রী এড: আবদুল মতিন খসরু এমপি । বিশেষ অতিথি ছিলেন সাবেক পিপি ও উপজেলা আ’লীগের সভাপতি এড: আবুল হাশেম খান, লায়ন ইঞ্জি: মো: আল আমিন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান এড: রেজাউল করিম । মো: জয়নাল আবেদীনের সভাপতিত্বে ও সিনিয়র শিক্ষক আবদুল মজিদের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা  আ’লীগ নেতা জিএম মোস-ফা ও প্রধান শিক্ষক মিজানুল হক ভুঞা । বারেশ্বর উচ্চ বিদ্যালয় ঃ গতকাল শনিবার বারেশ্বর উচ্চ বিদ্যালয়ের উদ্যোগে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় উপলক্ষে মিলাদ মাহফিলে প্রধান া প্রধান অতিথির বক্তব্য  রাখেন সাবেক আইন মন্ত্রী এড: আবদুল মতিন খসরু এমপি । বিশেষ অতিথি ছিলেন সাবেক পিপি ও উপজেলা আ’লীগের সভাপতি এড: আবুল হাশেম খান, লায়ন ইঞ্জি: মো: আল আমিন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান এড: রেজাউল করিম । বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মো: শাহআলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন প্রধান শিক্ষক মো: ছিদ্দিকুর রহমান । চড়ানল আওয়ামীলীগঃ গতকাল শনিবার বিকেলে রাজাপুর ইউনিয়নের চড়ানল গ্রামের আওয়ামীলীগের উদ্যোগে এলাকার দরিদ্র শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিরতণ করেন প্রধান অতিথি  সাবেক আইন মন্ত্রী এড: আবদুল মতিন খসরু এমপি । বিশেষ অতিথি ছিলেন সাবেক পিপি ও উপজেলা আ’লীগের সভাপতি এড: আবুল হাশেম খান, লায়ন ইঞ্জি: মো: আল আমিন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান এড: রেজাউল করিম । মো: হুমায়ুন কবির মেম্বারের সভাপতিত্বে এবং আসাদুল্লাহ বাবুলের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আ’লীগ নেতা সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী ও আবুল কাশেম মাষ্টার, আবু নাসের দাগু প্রমুখ । # আলমগীর হোসেন, বুড়িচং, কুমিল্লা ।