Archive | ফেব্রুয়ারি, 2013

বুড়িচংয়ে হরতালে পুলিশ-শিবির ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া

28 ফেব্রু.
গত ২৮ ফেব্রুয়ারী বৃহস্পতিবার জামায়াত-শিবিরের ডাকা সকাল সন্ধ্যা হরতালে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার ময়নামতি ইউনিয়নের কালাকচুয়া ও সৈয়দপুর এলাকায় সকাল ৬টা থেকে জামায়াত শিবিরের নেতাকর্মীরা দফায় দফায় বিক্ষোভ মিছিল ও পিকেটিং করে। এসময় সৈয়দপুর এলাকায় একটি কাভার্ট ভ্যান ও একটি ট্রাকের সামনের চাকা খুলে সড়ক অবরোধ করে রাখে।  এতে

সড়কে সাধারণ যানবাহন চলাচলে মারাত্মক ব্যাঘাত ঘটে। পুলিশ এগিয়ে এসে বিকল করা কাভার্ট ভ্যান ও ট্রাক সড়িয়ে ফেললে পুলিশের সাথে জামায়াত শিবিরের দুই দফা ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এতে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটে নি। অপর দিকে যোদ্ধাপরাধী মাওলানা দেলোয়ার হোসেন সাঈদীর ফাসির রায় ঘোষনা করার পর কালাকচুয়া এলাকায় জামায়াত শিবিরের কিছু নেতা কর্মী লাঠিছোঠা নিয়ে সড়কে নেমে আসে। পুলিশ ধাওয়া করে শিবির নেতা কর্মীদেরকে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এছাড়া কুমিল্লা-বুড়িচং-মীরপুর সড়কের বুড়িচং বিজয়পাড়া এলাকায় জামায়াত কর্মীরা টায়ারে অগ্নি সংযোগ করে। পরে পুলিশ গিয়ে জামায়াত কর্মীদেরকে ধাওয়া করে তাড়িয়ে দেয়। এছাড়া বুড়িচং উপজেলার কোথাও কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে নি। এদিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের বুড়িচং উপজেলার কালাকচুয়া ও সৈয়দপুর এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল ও পিকেটিং এ নেতৃত্ব দেন – জেলা বাইতুল মালের সম্পাদক মাওলানা নাছির উদ্দিন, শিবিরের সভাপতি শাহজাহান তালুদকার, সেক্রেটারি সোলেয়মান, জামায়াত নেতা মাওলানা শফিকুল ইসলাম প্রমুখ। # সৌরভ মাহমদু হারুন, বুড়িচং, কুমিল্লা #

বুড়িচংয়ে ইমামদের মতবিনিময় সভা

28 ফেব্রু.
গত ২৮ ফেব্রুয়ারী কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে  আগামী ১৭ মার্চ জাতির জনক পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৩ তম জন্ম দিবস ও জাতীয় শিশু দিবস ২০১৩ উদযাপন উপলক্ষ্যে এক প্রস’তিমূলক সভা এবং  বুড়িচং উপজেলার ৮ ইউনিয়নের  সকল মসজিদের ইমাম ও মাদ্রাসার প্রধানদের নিয়ে আইন শৃংখলা সম্পর্কিত এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে । উভয় সভায় সভাপতিত্ব করেন  বুড়িচং উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ খোরশেদ আলম খান । প্রস’তিমূলক সভায় ‘ স্বাধীনতার চেতনায় মোরা গড়বো দেশ/ বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ ’ এ প্রতিপাদ্য বিষয়ে সামনে রেখে আগামী ১৭ মার্চ জাতির জনক পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৩ তম জন্ম দিবস ও

জাতীয় শিশু দিবস ২০১৩ যথাযোগ্য মর্যাদায় উদযাপনের লক্ষ্যে বিভিন্ন কর্মসূচী গ্রহন করা হয় । উক্ত  প্রস’তিমুলক সভায় বক্তব্য রাখেন বুড়িচং উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাদেরা পারভিন আক্তার, সমাজ সেবা অফিসার জেডএম মিজানুর রজমান খান, কৃষি অফিসার মো: আনিসুর রহমান, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো: ইকবাল হাসান, উপজেলা শিক্ষা অফিসার বীরমুক্তিযোদ্ধা মো: সিরাজুল ইসলাম খন্দকার, উপজেলা প্রকল্প বাস-বায়ন কর্মকর্তা সালমা আক্তার । এসময় অধ্যক্ষ মোনাব্বের হোসেন, অধ্যক্ষ সফিকুর রহমান সরকার, অধ্যক্ষ আবুল বাসার, বাংলাদেশ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি কুমিল্লা জেলা শাখার সভাপতি মো: কামরুল হাসান, প্রধান শিক্ষক নুরুল ইসলাম, আমির হোসেন, মো: মিজানুর রহমান খান, কাজী রুহুল আমিন, একেএম হাবিবুর রহমান, জাহাঙ্গীর হোসেনসহ উপজেলার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানগণ উপসি’ত ছিলেন । এদিকে, বুড়িচং উপজেলার ৮ ইউনিয়নের প্রায় ৩ শতাধিক   ইমামদের নিয়ে ইমামদের আইন শৃংখলা সম্পর্কিত  মতবিনিময় সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন বুড়িচং উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাদেরা পারভিন আক্তার। ফিল্ড সুপারভাইজার মু. মাহবুবুর রহমানের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন অধ্যক্ষ মাও: আবুল বাসার, অধ্যক্ষ মাও: জয়নাল আবেদীন, ইমাম পরিষদের সভাপতি মাও: আবু সাইদ, মো: জসিম উদ্দিন, অধ্যক্ষ সফিকুর রহমান সরকার, সুপার সফিকুর রহমান,  মাও: আ: কুদ্দুছ প্রমুখ । এসময় অন্যান্য মসজিদের ইমামগণ উপসি’ত ছিলেন । # জেহাদ হোসেন খোকন, বুড়িচং #

বুড়িচংয়ে মা সমাবেশ ও বার্ষিক ক্রীড়ার পুরস্কার বিতরণ

28 ফেব্রু.
গত ২৮ ফেব্রুয়ারী কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার যদুপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের উদ্যোগে বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে মা সমাবেশ ও বার্ষিক ক্রীড়ার পুরস্কার বিতরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে । এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বুড়িচং উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ খোরশেদ আলম খান । বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বুড়িচং উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাদেরা পারভিন আক্তার, উপজেলা শিক্ষা অফিসার বীরমুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম খন্দকার, উপজেলা

প্রকল্প বাস-বায়ন কর্মকর্তা সালমা আক্তার, এটিইও যথাক্রমে আ: কুদ্দুছ প্রধান, মনিরুজ্জামান, বাংলাদেশ সরকারী প্রা: বিদ্যালয়ের কুমিল্লা জেলা শাখার সেক্রেটারী মো: কামরুল হাছান । বিদ্যালয়ের সভাপতি মো: হুমায়ুন কবিরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মা সমাবেশ ও বার্ষিক ক্রীড়ার পুরস্কার বিতরণী সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন প্রধান শিক্ষক মো: আলী আকবর । বক্তব্য রাখেন আ: ছাত্তার মেম্বার, ছাত্রী শারমিন আক্তার প্রমুখ । এসময় প্রধান শিক্ষক মো: মিজানুর রহমান, আমির হোসেন সহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপসি’ত ছিলেন । সার্বিক দায়িত্বে ছিলেন শিক্ষক যথাক্রমে রহিমা আক্তার, রাজিয়া খাতুন, নার্গিস আক্তার, ফৌজিয়া ইয়াসমিন, মুমিনুল ইসলাম ও ইয়াসমিন আক্তার। পরে অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথি বিভিন্ন ইভেন্টে বিজয়ী ছাত্র/ছাত্রীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন ।  # আলমগীর হোসেন, বুড়িচং #

ব্রা‏হ্মণপাড়ায় হরতাল বিরোধী ছাত্রলীগের মিছিল, সাঈদির ফাসির রায়ে আনন্দ মিছিল

28 ফেব্রু.
কুমিল্লার ব্রা‏হ্মণপাড়া উপজেলায় গত ২৮ ফেব্রুয়ারী হরতাল চলাকালে হরতালের পক্ষে জামাত শিবিরের কোন মিছিল দেখা যায়নি। তবে ছাত্রলীগের উদ্দ্যোগে হরতাল বিরোধী শান্তি মিছিল উপজেলার প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে।  মিছিলেন নেতেৃত্বে ছিলেন ছাত্রলীগ আহবায়ক আলী হোসেন, যুগ্ন আহবায়ক জাহিদুল হাসান পলাশ, গোলাম বিকরিয়া বিল্লাল, আবদুস সাত্তার, আরিফুল ইসলাম, কামরুল হাসান জুয়েল, মোশাররফ হোসেন লিটন, থানা ছাত্রলীগ সাবেক সহসভাপতি সোহেল মোস্তফা মিয়াজী, আলাউদ্দিন রিপন,

সাবেক যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক বিল্লাল হোসেন সরকার, মাসুদ আলী হায়দার, যুগলীগ প্রচার সম্পাদক রফিকুল আলম খোরশেদ, যুবলীগ নেতা উজ্জ্বল চন্দ্র রায়, জসিম, রোমন সরকার, মজিবুর রহমান মাষ্টার, গোলাম কিবরিয়া বিল্লাল, দুলালপুর ইউপির ৩নং ওয়ার্ড মেম্বার শাহাদাৎ হোসেন সরকার, জাহাঙ্গীর আলম, আওলাদ হোসেন, খলিল, মাসুদ, ছাত্রলীগ নেতা কাইয়ূম খান চৌধুরী, সোহাগ, মিশন, ফয়সাল, নাইম খান চৌধুরী, ফরহাদ, ফারুক, মামুন, রাশেদ, নাজমুল, শরীফ, রেজাউল, হানিফ প্রমুখ। মাওলানা দেলোয়ার হোসেন সাঈদীর রায় ঘোষনার পর ছাত্রলীগ ও যুবলীগ নেতাকর্মীরা পটকা ফুটিয়ে মোটর সাইকেল র‌্যালী করে আনন্দ প্রকাশ করেন।

হরতালে ব্রাহ্মণপাড়ায় গাড়ী, মূর্তি ও হাসপাতাল ভাংচুর, গ্রেফতার ১

28 ফেব্রু.
কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার উত্তর চান্দলা গ্রামে ২৮ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার হরতাল চলাকালে দুপুর আড়াইটায় শীব মন্দিরের পাশে ব্রা‏হ্মণপাড়া-মীরপুর রাস্তায় গাড়ী ও মুর্তি ভাংচুর এবং ব্রা‏হ্মণপাড়া সদরের ভিশন হাসপাতাল ভাংচুরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। স’ানীয়ভাবে জানা যায়, ইসলাম ধর্মের অবমাননাকারীদের শাস্তি সহ বিভিন্ন দাবীতে জামাতে ইসলামীর ডাকা হরতাল চলাকালে দুপুরে মানবতা বিরোধী অপরাধে অভিযুক্ত দেলোয়ার হোসেন সাঈদীর ফাসীর রায় প্রকাশ পাওয়ার পর উত্তর চান্দলার ফারুক প্রকাশ ফটো মাষ্টারের ছেলে ইকবাল হোসেন উত্তেজিত হয়ে ঘটনাস’লে একটি মাইক্রোবাস (ঢাকা মেট্রো ছ-১১-১৮০০) এর পেছনের গ্লাস ও একটি অটো বাইকের গ্লাস

সহ ১টি মোটর সাইকেল ভাংচুর করে বলে জানিয়েছেন মাধবপুর ইউপি চেয়ারম্যান সুলতান আহাম্মদ ও উত্তর চান্দলা ৭নং ওয়ার্ড মেম্বার সুলতান আহাম্মেদ। গাড়ী ভাঙ্গার পর তারা পার্শ্ববর্তী চান্দলা আদী শিব মন্দিরের ১টি শীতলা মূর্তি ভাংচুর করে। এসময় লোকজনের উপসি’তি টের পেয়ে সে দৌড়ে পালিয়ে যায়। স’ানীয়রা জানান, সে খুবই বদমেজাজী ছেলে এবং কিছুটা মানুষিক বিকারগ্রস্ত। খবর পেয়ে থানা পুলিশ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও স’ানীয় জনপ্রতিনিধিরা ঘটনাস’ল পরিদর্শন করেন। পরে বিকেলে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করেন। চান্দলা শিব মন্দির কমিটির সভাপতি মনোহর দাশ বলেন, আমাদের পুজনীয প্রতিমা ভাংচুর  করে সে খুবই নিন্দনীয় কাজ করেছে। আমরা তার দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবি করছি। অপরদিকে, ওইদিন বিকেলে ব্রা‏হ্মণপাড়া সদরে অবসি’ত ভিশস হসপিটালকে জামাত পরিচালিত প্রতিষ্ঠান হিসেবে আক্রমন করে উশৃঙ্খল কিছু লোকজন। এসময় তারা ইট পাটকেল ছুড়ে হাসপাতালের দক্ষিণ পার্শ্বের বেশ কয়েকটি গ্লাস ভাংচুর করে। এসময় হাসপাতালের রুগীরা দিকবিদিক ছোটাছুটি করে আতঙ্কগ্রস্ত হয়েপড়ে। তবে কেউ হতাহত হয়নি বলে জানায় হাসপাতালে কর্মরত লোকজন। খবর পেয়ে ব্রা‏হ্মণপাড়া থানার এস.আই লুৎফর রহমান সঙ্গীয় ফোর্স ঘটনাস’লে গিয়ে পরিসি’তি নিয়ন্ত্রনে আনে। এছাড়া উপজেলার কোথাও কোন অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা উত্তম কুমার বড়-য়া বলেন, মূর্তি ভাংগায় অভিযুক্ত যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস’তি চলছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আজিজুর রহমান পরিদর্শন করে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, স’ানীয় একটি ছেলে মুর্তিটি ভাংচুর করেছে। ইতিমধ্যে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করেছে। ভিশন হসপিটাল ভাংচুরের ঘটনাটিও এখন পুলিশের নিয়ন্ত্রনে রয়েছে। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনুযায়ী ব্যবস’া গ্রহণ করা হবে =॥ আবদুল আলীম খান, ব্রা‏হ্মণপাড়া =॥

ব্রা‏হ্মণপাড়ায় গাঁজা সহ প্রাইভেটকার ও কাভার্ড ভ্যান আটক, গ্রেফতার ১

27 ফেব্রু.
কুমিল্লার ব্রা‏হ্মণপাড়া উপজেলার শশীদল ইউনিয়নের দক্ষিণ শশীদল এলাকা থেকে কুমিল্লা র‌্যাব-১১ এর সদস্যরা ২৬ ফেব্রুয়ারী রাতে ৮৬ কেজি গাঁজা বহনকারী প্রাইভেটকার ও কাভার্ড ভ্যান সহ ১জনকে আটক করেছে। র‌্যাব-১১ এর স্কডন লিডার সায়েদ আলম খাঁন সঙ্গীয় ফোর্স অভিযান চালিয়ে দক্ষিণ শশীদলের তালেব মেম্বারের বাড়ীর পার্শ্বে থেকে কুমিল্লা-বাগড়া সড়কের উপর থেকে ১টি কাভার্ডভ্যান (ঢাকা মেট্রো-অ-১১-০৭২১) এর ভিতর

থেকে অভিনব কায়দায় লুকিয়ে রাখা ৫৯ কেজি গাঁজা উদ্ধার করে। এসময় একই স’ান থেকে প্রাইভেটকার (ঢাকা মেট্রো খ-১২-২৬৯৪) এর ভিতর থেকে ২৮ কেজি গাঁজা উদ্ধার করে। এসময় উপজেলার শশীদল ইউনিয়নের আনন্দপুর গ্রামের শফিক মিয়ার ছেলে শাহজাহান (১৯)কে গ্রেফতার করা হয়। এই ব্যাপারে র‌্যাব-১১ এর হাবিলদার জামাল উদ্দিন বাদী হয়ে ব্রা‏হ্মণপাড়া থানায় মাদক আইনে মামলা করেছে।

বুড়িচংয়ে অগ্নিকান্ডে ২টি ঘর ভষ্মীভূত ৫ লক্ষাধীক টাকার ক্ষয়-ক্ষতি

27 ফেব্রু.
গত ২৭ ফেব্রুয়ারি বুধবার বেলা ১১ টায় জেলার বুড়িচং উপজেলার মনিপুর পূর্বপাড়া গ্রামের প্রবাসী বাবুল মিয়ার বাড়িতে এক ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ২টি ঘর, নগদ টাকা, স্বর্ণালংকার ও মালামাল সহ ভস্মীভূত হয়। এতে প্রায় ৫ লক্ষাধীক টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এলাকাবাসী জানায় যে, কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার মোকাম ইউনিয়নের মনিপুর পূর্বপাড়া গ্রামের দুবাই প্রবাসী বাবুল মিয়ার ঘরে গতকাল বুধবার বেলা ১১টায় বশত ঘরে রহস্যজনক ভাবে অগ্নিকাণ্ডের সূচনা ঘটে। মূহুর্তের মধ্যে আগুনের লেলিহান শিখা ছড়িয়ে পড়ে

এতে রান্নাঘরসহ প্রবাসী বাবুলের ২ ঘর সম্পূর্ণ পুড়ে ভস্মীভূত হয়ে যায়। প্রবাসী বাবুলের ছোট ভাই আব্দুল জলিল ও স্ত্রী আমেনা খাতুন জানায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনার সময় তিনি স’ানীয় প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে জান্নাত নামের মেয়েকে আনার জন্য বিদ্যালয়ে যায়। এ সময় এলাকায় বিদ্যুৎ ছিলনা, অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাটি রহস্যজনক বলে তারা দাবি করছেন। অগ্নিকাণ্ডের ফলে ঘরে থাকা নগদ ৩৫ হাজার টাকা, ২ ভরি স্বর্ণ, মালামালসহ প্রায় ৫ লক্ষাধীক টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে স’ানীয় মোকাম ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ জয়নাল আবেদিন ঠিকাদার ঘটনাস’ল পরিদর্শন করেন। তিনি ক্ষতিগ্রস’দেরকে নগদ অনুদান প্রদান করেন। সরকারি সাহায্য সহযোগিতা করার ও তিনি আশ্বাস দেন =॥ সৌরভ মাহমুদ হারুন, বুড়িচং, কুমিল্লা ॥=

ব্রা‏হ্মণপাড়ায় খাদ্যে বিষক্রিয়ায় একই পরিবারের ৮জন অজ্ঞান

25 ফেব্রু.
কুমিল্লার ব্রা‏হ্মণপাড়ার চান্দলা ইউনিয়নের সাজঘর গ্রামে গত ২৪ ফেব্রুয়ারী রাতে খাদ্যে বিষক্রিয়ায় একই পরিবারের শিশু সহ ৮সদস্য অজ্ঞান হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়। সূত্রে জানা যায়, উপজেলার  চান্দলা ইউনিয়নের সাজঘর গ্রামের রহিম মেম্বারের বাড়ীর নায়েব আলীর পরিবারের সদস্যরা যথারীতি রাতের খাবার খায়। পার্শ্ববর্তী অহেদা বেগম সাংবাদিকদের জানান, অন্যান্য দিনের ন্যায় রাতের খাবার খাওয়ার পর তাদের পার্শ্ববর্তী এক মহিলা আনুমানিক ৯টা ৩০ মিনিটের সময় জরুরী প্রয়োজনে তাদেরকে ডাকতে আসে। অনেকক্ষন ডাকা ডাকির পর কোন সারা শব্দ না পেয়ে তাদের সন্দেহ হয়। এসময় অহেদা খাতুনও তার ঘর থেকে বেরিয়ে আসেন। সকলে মিলে কৌশলে ওই ঘরে প্রবেশ করার পর দেখতে পান, পরিবারের সবাই

এলোপাতারি ভাবে যেখানে সেখানে শুয়ে আছেন। তখন তারা মোবাইল ফোনে অজ্ঞান হওয়া পরিবারের সদস্যদের নিকটাত্তিয়দের খবর দেন। সকলে দ্রুত ঘটনাস’লে এসে তাদেরকে অজ্ঞান অবস’ায় বিছানায় শুইয়ে দেন। এসময় তাদের ঘর তল্লাশী করে সকল মালামাল সঠিক পাওয়া যায়। পরদিন সকালে ব্রা‏হ্মণপাড়া উপজেলা স্বাস’্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করানো হয়। এদের মধ্যে রয়েছেন নায়েব আলী (৬৫), মমতাজ বেগম (৫৫) রাজিয়া বেগম (৩৫) আমির হোসেন (৩০), সুবর্ণা (১৮) ফারুক (১৬) সুমাইয়া আক্তার (১৫), ঝুমা আক্তার (১০)। এই ব্যাপারে তাদের চিকিৎসক ব্রা‏হ্মণপাড়া উপজেলা স্বাস’্য কমপ্লেক্সের ডা: মোহাম্মদ আবদুল বাকী বলেন, তাদের প্রত্যেকের পেটে খাবারের সাথে বিষাক্ত দ্রব্য লক্ষ্যকরা গেছে। যেভাবেই হোক তাদের ফুড পয়জনিং হয়েছে। স’ানীয়দের ধারণা নাশকতা করার লক্ষ্যে কে বা কাহারা ওই পরিবারের রাতের খাবারের সাথে অজ্ঞান হওয়ার জন্য বিষাক্ত কিছু মিশিয়েছে। সময় মত টের পাওয়ায় সে বিপদ থেকে রক্ষা হয়েছে। প্রতিবেদন লিখা পর্যন্ত ওই পরিবারের সবাই ব্রা‏হ্মণপাড়া স্বাস’্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

ব্রাহ্মণপাড়ায় যুবদল সভাপতি সাজু সহ কারামুক্ত নেতৃবৃন্দের সংবর্ধনা

24 ফেব্রু.
কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা যুবদলের সভাপতি শাহজাহান সাজু ও সদর ইউনিয়ন যুবদলের সাধারন সম্পাদক জাকির হোসেন দীর্ঘদিন কারাভোগের পর জামিনে মুক্তি পাওয়ায় ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা যুবদল গত ২৩ ফেব্রেুয়ারী বিকালে তাদের সংবর্ধনার আয়োজন করে। যুবদলের সহসভাপতি মোস্তফা খাঁন এর সভাপতিত্বে  যুবদলের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক আবু ইউসুফ  বাবুলের পরিচালনায় প্রধান অতিথি ছিলেন বিএনপির সদস্য সচিব শাহআলম খোকন। বিশেষ অতিথি ছিলেন সাংগঠনিক দায়িত্বে আমির হোসেন,থানা যুবদলের সাধারন সম্পাদক মনিরুল ইসলাম সরকার । উপসি’ত ছিলেন বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক

গনি মিয়া চেয়ারম্যান, সেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি আনিসুর রহমান ভুইয়া রিপন, যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক সুমন, যুবদল নেতা কবির হোসেন, আকরামুল ইসলাম আকরাম, জাহাঙ্গীর আলম ভুইয়া, মামুনুর রশীদ,মিজানুর রহমান, শরীফুল ইসলাম,মজিবুর রহমান লিটন, জামাল হোসেন, মোঃ আনোয়ার পারভেজ,নাজমুল হাসান, ছাত্রদলের আহবায়ক জাকির খাঁন সম্‌্রাট, যুগ্ম আহবায়ক ফারুক আহাম্মদ, এমদাদুল হক সবুজ, তাজুল ইসলাম মিঠু, শরাফ উদ্দিন,মাহাবুব চৌধুরী বাবু, ফজল আহাম্মদ, মাসুম, মাহাবুব, আবু কালাম, নাছির উদ্দিন মিঠু, ছাত্রনেতা মোহাম্মদ আলী, আবদুল জলিল, আক্তার হোসেন, শাহজালাল সরকার, সুমন আহাম্মদ, আল আমিন, বাবলু,নীরু,হোসেন, মামুন, জাকির, আশিক, এমরান, ফারুক, সোহাগ, মহসিন,শামিম, রায়হান, এমরান, শরিফ হোসেন, সাইফুল প্রমুখ।

  

আন্তর্জাতিক মার্তৃভাষা দিবস উপলক্ষে ব্রা‏হ্মণপাড়া মোশাররফ কলেজে র‌্যালী ও আলোচনা সভা

23 ফেব্রু.
মহান একুশে ফেব্রুয়ারী মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মার্তৃভাষা দিবস উপলক্ষে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করে উপজেলা সদরের মোশাররফ হোসেন খান চৌধুরী ডিগ্রি কলেজে ওইদিন পুষপস্তবক অর্পন, র‌্যালী ও আলোচনা সভা করা হয়। দিবসের শুরুতে কলেজ অধ্যক্ষ আলতাফ হোসেনের নেতৃত্বে অন্যান্য শিক্ষকগণকে নিয়ে উপজেলা প্রশাসনের সাথে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে রাত ১২টা ১ মিনিটে পুষপস্তবক অর্পন করা হয়। সকালে অধ্যক্ষের নেতৃত্বে শিক্ষক শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহনে বিশাল র‌্যালী করে ভাষা শহীদদের স্বরনে স্লোগান দিয়ে উপজেলার প্রধান প্রধান

সড়ক প্রদক্ষিণ করে কলেজ প্রাঙ্গনে এসে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এসময় উপসি’ত ছিলেন সহ অধ্যাপক মানস কুমার রায়, প্রভাষক কবির আহম্মেদ, হুমায়ূন কবির, শরীফ মো: রেজা, লিপি সরকার, শহিদুল ইসলাম, মাহবুবুর রহমান, জামাল হোসাইন, মোমিনুল হক ভূইয়া, বশির আহম্মেদ, নেছার আহম্মেদ, আয়েশা নূর, আবদুল্লাহ আল মামুন, মারজিয়া সুলতানা, ফখরুল ইসলাম সহ কলেজে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীবৃন্দ। এসময় বক্তাগন বাঙ্গালী সাংস্কৃতির অন্যতম স্বরনীয় দিন মহান একুশে ফেব্রুয়ারী উপলক্ষে বিষদ আলোচনা করে ভাষার জন্য আত্মদানকারী শহীদদের কথা স্বরণ করেন। মায়ের ভাষা রক্ষা করার জন্য পৃথিবীর ইতিহাসে বাঙ্গালীর আত্মত্যাগ পৃথিবীর অধিকাংশ রাষ্ট্রে মাতৃভাষা দিবস হিসেবে পালন করছে যা বাঙ্গালীর জন্য এক গৌরবময় ইতিহাস। তাই ভাষা ও রাষ্ট্রের প্রতি গভীর ভালবাসায় সিক্ত হয়ে সকলকে স্বীয় অবস’ান থেকে চীরদির ভাষা শহীদদের স্বরন করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। এসময় কলেজ প্রতিষ্ঠাতা বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী আমেরিকা প্রবাসী মোশাররফ হোসেন খান চৌধুরী মোবাইল ফোনে ভাষা শহীদদের স্বরণ করে সকলের সাথে একাত্মতা ঘোষনা করেন। পরে ভাষা শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে মুনাজাতের মাধ্যমে অনুষ্ঠান সমাপ্ত হয়।